পটুয়াখালী খবর

কুয়াকাটায় গ্রোয়েন বাঁধ নির্মানের দাবীতে প্রতীকী  গ্রোয়েন বাঁধ

কুয়াকাটায় গ্রোয়েন বাঁধ নির্মানের দাবীতে প্রতীকী গ্রোয়েন বাঁধ

কলাপাড়া প্রতিনিধি

কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতে শুক্রবার সকাল ১০ টায় বালু ক্ষয়রোধে আন্ধারমানিক নদীর মোহনায় গ্রোয়েন বাধঁ নির্মানের দাবীতে প্রতীকী গ্রোয়েন বাঁধ বন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। কুয়াকাটা ট্যুরিজম ব্যবসায়ীদের উদ্যোগে ঘন্টাব্যাপি এ কর্মসূচীতে পর্যটকসহ বিভিন্ন পেশার কয়েক শতাধিক মানুষ অংশ গ্রহন করে।

কর্মসূচীতে অংশ গ্রহনকারীরা জানায়, প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে অব্যাহত বালু ক্ষয়ে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মুখে পড়ে কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকত। এ থেকে পরিত্রান পেতে পানি উন্নয়ন বোর্ড কোটি কোটি টাকা বরাদ্ধ দিয়ে প্রতিরোধে এগিয়ে আসলেও তা কোন কাজে আসছেনা। কর্মসূচীর মুক্ত আলোচনায় বাংলাদেশ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির লতাচাপলী ইউনিয়ন টিম লিডার ও কুয়াকাটা প্রেসকাবের প্রতিষ্ঠাতা সাবেক সভাপতি মো. শফিকুল আলম বলেন, আন্ধার মানিক মোহনার লেম্বু চরে গ্রোয়েন বাঁধ নির্মান হলে সমুদ্রের ¯্রােতধারা পরিবর্তন করে বিস্তৃর্ন বেলাভুমি তৈরীতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। কুয়াকাটা পৌরসভার কাউন্সিলর তোফায়েল আহম্মেদ তপু বলেন, এ দাবী যৌক্তিক এবং যুগপোযোগী। সরকার দ্রুত ব্যবস্থা না নিলে বিনিয়োগকারীরা তাদের বিনিয়োগ গুটিয়ে নিবে। এ কর্মসূচী আয়োজকদের অন্যতম কুয়াকাটা ট্যুরিজম বোট মালিক সমিতির সভাপতি জনি আলমগীর তার বক্তব্যে বলেন, গ্রোয়েন বাঁধ নির্মান হলে সরকার দুই দিক দিয়ে লাভবান হবেন। একদিকে বালুক্ষয় থেকে রক্ষা পাবে কুয়াকাটা সৈকত, অপরদিকে এ বাঁধ পর্যটকদের জন্য দর্শনীয় স্থান হবে। যা দিয়ে সরকার প্রতিবছর প্রচুর পরিমানে রাজস্ব আদায় করতে পারবে।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বরিশাল বিভাগীয় প্রধান প্রকৌশলী মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, পানি উন্নয়ন বোর্ডের নিয়ম অনুযায়ী শক্তিশালী প্রতিনিধি দল গঠন করা হয়েছে। সম্ভাব্যতা যাচাই বাছাই ও সমীক্ষা সাপেক্ষে এ কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করলে প্লানিং কমিটি অর্থ বরাদ্ধ দিলে কাজ শুরু করা হবে।

আল-আমিন খান

আগস্ট 8th, 2015

No Comments

Comments are closed.